Blog Page 3

শিশুর জন্য চাই নিরাপদ পৃথিবী

0
বাংলাদেশে শিশু নির্যাতন নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। প্রতিদিনই দেশের কোনো না কোনো অঞ্চলে শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। শিশু নির্যাতনের কিছু ঘটনা জনসমক্ষে আসছে আবার অনেক ঘটনা অন্তরালেই থেকে যাচ্ছে। গত ১৮ অক্টোবর দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার সিঙ্গিমারী জমিরহাট এলাকায় পাঁচ বছরের একটি শিশু মানুষরূপী দানব কর্তৃক নির্যাতনের স্বীকার হয়েছে। সাইফুল নামের এক নরপশু পাঁচ বছরের অবুঝ নিষ্পাপ এই শিশুটিকে ধর্ষণ ও লোমহর্ষকভাবে ক্ষতবিক্ষত করেছে। এ শিশুটিকে এমনভাবে নির্যাতন করা হয়েছে যা সভ্য সমাজের বাসিন্দাদের পক্ষে ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব নয়। শিশুটির প্রতি সান্ত্বনা জানানোর ভাষাও আমরা হারিয়ে ফেলেছি। এমন ঘটনায় নির্বাক হয়ে আমরা শুধু অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

নজরদারির সঙ্গে চাই সামাজিক প্রতিরোধ

0
সারাবিশ্বের পাশাপাশি উগ্র জঙ্গিবাদী সন্ত্রাস বাংলাদেশের জন্য একটি বড় সমস্যা হিসেবে গণ্য হতে যাচ্ছে। দেশে সাম্প্রতিক সময়ে একের পর এক যে উগ্রবাদী হামলা ঘটছে তা মানুষকে অসহায় করে তুলছে। মানুষ এর সুরাহা চায়। এ থেকে মুক্তি চায়। সে জন্য সরকার যে পদক্ষেপ নেবে তাতে কারো আপত্তি থাকবে বলে মনে হয় না। বর্তমান পরিস্থিতিতে কঠোর নজরদারি এবং সামাজিক প্রতিরোধই পারে জঙ্গি ও সন্ত্রাস নির্মূল করতে। বর্তমান সরকার জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করে নানা পদক্ষেপ অব্যাহত রাখলেও সংকট পিছু ছাড়েনি। গত ১ জুলাই শুক্রবার গুলশানের হোটেল আর্টিজানে এবং ঈদুল ফিতরের দিন (০৭ জুলাই) শোলাকিয়ায় ঈদগাহ ময়দানের পাশে জঙ্গিগোষ্ঠী কর্তৃক ইতিহাসের যে ঘৃণ্য ঘটনা ঘটেছে তা পুরো জাতিকে স্তম্ভিত করে দিয়েছে। শুধু বাঙালিরা নয়, সারা বিশ্ব এ ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে। বাংলাদেশের মতো একটি দেশে এ ধরনের ঘটনা বিশ্ববাসীকে নতুন বার্তা দিয়ে গেলো। তবে আশার কথা হলো সরকার বিষয়গুলোকে যথেষ্ট সতর্কতার সঙ্গে মোকাবিলা করছে এবং জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অকুতোভয় লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।

দায়িত্বশীল সরকার ও তার সিদ্ধান্ত

0
বর্তমান সরকার পরিবহন ব্যবস্থার উন্নতিসহ দেশের সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ড আরো জোরদারে জনগণের সক্রিয় অংশগ্রহণকে অধিকতর শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। সরকার এ দেশের উন্নয়নের গতিকে আরো ত্বরান্বিত করতে চায়। কিন্তু সরকারের একার পক্ষে এটা সম্ভব নয়। প্রয়োজন জনগণের সহযোগিতার।

ইয়াসমিন আরা লেখা : এক অনন্য সাহিত্য বিশ্লেষক

0

ড. ইয়াসমিন আরা লেখা শিক্ষাবিদ, ভাষাতাত্ত্বিক ও সাহিত্য সমালোচক হিসেবে ইতিমধ্যে পরিচিত। তিনি একাধিক গ্রন্থের সম্পাদক ও লেখক। তাঁর উত্সাহ ও ঔত্সুক্যের বিষয় বিচিত্র। তিনি শিক্ষা, শিক্ষাদান পদ্ধতি নিয়ে গ্রন্থ রচনা করেছেন; আবার জাতীয় পত্রিকায় সমকালীন বিষয় নিয়ে কলাম লিখে পাঠকের মনোযোগ আকর্ষণ করেছেন। পাঠের বৈচিত্র্য ও লেখনীর সাবলীলতায় তাঁর প্রকাশ দক্ষতা অনন্য। বাংলাদেশের সাহিত্যের সামগ্রিক, যুক্তিগ্রাহ্য ও নিরপেক্ষ মূল্যায়ন করেছেন তিনি। শিল্প-সাহিত্যের আনন্দ ও সৌন্দর্যকে সম্যক অনুধাবন করার ক্ষমতা তাঁর আছে।

ষোলোতে বিয়ে :পরিকল্পনা ও বাস্তবতা

0
বিশ্বের ৬শ’ ৫৪ কোটি মানুষের অর্ধেকের বেশি নারী। বাংলাদেশের চিত্রও অভিন্ন। ১৬ কোটি মানুষের মাঝে নারীর সংখ্যা অর্ধেক। এ অবস্থায় নারীর ক্ষমতায়ন ও তার সক্ষমতা প্রমাণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার ব্যাপক ভূমিকা রেখেছেন। কিন্তু সম্প্রতি মেয়েদের বিয়ের বয়স নিয়ে সরকারের নানা অংশ থেকে যে আলোচনা হচ্ছে তা বিবেকবান ও সচেতন মানুষের মাঝে শঙ্কা সৃষ্টি করছে।

বিশ্বব্যাপী জঙ্গিবাদের উত্থান ও বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স

0

অধ্যাপক ড. ইয়াসমীন আরা লেখা : সারাবিশ্ব উগ্র জঙ্গিবাদের থাবায় ক্ষতবিক্ষত হওয়ার কারণে বর্তমানে জঙ্গিবাদ পৃথিবীব্যাপী একটি বড় সংকটে পরিণত হয়েছে। বিশ্বের উন্নত এবং ক্ষমতাবান দেশগুলোকে জঙ্গিবাদের আতঙ্ক রীতিমতো ভাবিয়ে তুলেছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বৃহৎ পরাশক্তিগুলো জঙ্গিবাদী বা উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী মোকাবিলায় তৎপর হলেও ফ্রান্সের মতো একটি রাষ্ট্রে যখন উগ্রগোষ্ঠী নির্বিচারে হামলা চালায়, তখন আঁতকে উঠতে হয় পুরো বিশ্বকে। যখন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য জঙ্গিগোষ্ঠীর হামলার টার্গেটে থাকে, তখন আমাদের মতো ক্ষুদ্র রাষ্ট্রের অধিবাসীরাও কমবেশি আতঙ্কগ্রস্ত হন। তবে বিশ্বব্যাপী জঙ্গিবাদের যে ভীতি ঘরে ঘরে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে, বাংলাদেশ বোধহয় তার চেয়ে কিছুটা নির্ভার। এক্ষেত্রে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিষয়ে বর্তমান সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ জনগণকে আশ্বস্ত করেছে।

সন্ত্রাসবাদ দমনে চাই সামাজিক প্রতিরোধ

0
সারাবিশ্ব উগ্র জঙ্গিবাদের থাবায় ক্ষতবিক্ষত হওয়ার কারণে বর্তমানে জঙ্গিবাদ পৃথিবীব্যাপী একটি বড় সংকটে পরিণত হয়েছে। বিশ্বের উন্নত এবং ক্ষমতাবান দেশগুলোকে জঙ্গিবাদের আতঙ্ক রীতিমতো ভাবিয়ে তুলেছে। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বৃহত্ পরাশক্তিগুলো জঙ্গিবাদী বা উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী মোকাবিলায় তত্পর হলেও ফ্রান্সের মতো একটি রাষ্ট্রে যখন উগ্রগোষ্ঠী নির্বিচারে হামলা চালায় তখন আঁঁতকে উঠতে হয় পুরো বিশ্বকে। যখন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য জঙ্গিগোষ্ঠীর হামলার টার্গেটে থাকে তখন আমাদের মতো ক্ষুদ্র রাষ্ট্রের অধিবাসীরাও কমবেশি আতঙ্কগ্রস্ত হন। তবে বিশ্বব্যাপী জঙ্গিবাদের যে ভীতি ঘরে-ঘরে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে বাংলাদেশ বোধহয় তার চেয়ে কিছুটা নির্ভার। এক্ষেত্রে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিষয়ে বর্তমান সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ জনগণকে আশ্বস্ত করেছে।
আমরা যদি কয়েক বছর পেছনে ফিরে তাকাই তাহলে কি দেখব? দেশের প্রায় প্রতিটি জেলায়, আদালতে, বিভিন্ন সমাবেশে গ্রেনেড ও বোমা হামলার মতো ঘটনা ঘটেছে। এই ভয়াবহ হামলা আমাদেরকে শুধু বিস্মিতই করেনি, আতঙ্কিতও করেছিল। জঙ্গিবাদ মতাদর্শী বিভিন্ন সংগঠনের উত্থান একসময় পুরো জাতিকে আতঙ্কিত করলেও আজ এ ধরনের আতঙ্ক অনেকটা দূর হয়েছে। সময়ের ব্যবধানে সে আতঙ্ক এখন আর আগের মতো তাড়িয়ে ফেরে না জনগণকে। এজন্য দেশের রাজনৈতিক মতাদর্শ ভুলে দেশের আপামর জনতার সাধুবাদ বর্তমান সরকার নি:সন্দেহে পেতে পারেন।

শেখ হাসিনা: একজন মানুষ একটি দল ও দেশ

0

প্রফেসর ডক্টর ইয়াসমীন আরা লেখা : একজন বঙ্গনারী সকল বৈশিষ্ট্যের অধিকারিণী পরিপূর্ণ মানুষ। নম্রভাষী, বিনয়ী আচরণ, মানুষের প্রতি স্নেহ ভালোবাসায় পরিপূর্ণ, মানুষকে আপন করে নেওয়ার এক অপূর্ব ক্ষমতা আমি যার মাঝে দেখেছি, তিনি হচ্ছেন বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ৬৯ বছরে পদার্পণ করেছেন। সমসাময়িক রাজনীতিতে এই মানুষটি দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে অহোরাত্রি যে পরিশ্রম করছেন, তা অতুলনীয়। শেখ হাসিনার শাসনামলে আন্তর্জাতিক মহলে যে উচ্চাসনে বাংলাদেশ আসীন হয়েছে, তাঁর জন্য শুভ জন্মজয়ন্তী বললে জাতিই সম্মানিত হবে। এই লেখার শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি এবং তাঁর দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

Recent News

Popular Posts